করোনা সংকটে ভ্রাতৃত্বের হাত বাড়িয়ে স্বর্ণ মন্দিরে ৩৩ টন গম দান করলো পাঞ্জাবের মালেরকোটলার মুসলিম সম্প্রদায়

লঙ্গরখানায় মানুষের খাবার জন্য মোট ৩৩ টন গম বোঝাই দুটি ট্রাক স্বর্ণ মন্দিরে তাঁরা পাঠিয়েছেন, পরে এই গম তুলে দেওয়া হয় মন্দির কর্তৃপক্ষের হাতে। আনুষ্ঠানিক ভাবে এই গম তুলে দেন ‘শিখ-মুসলিম সাঁঝা মঞ্জ’-এর সভাপতি নাসির আখতার। আগামী দিনগুলিতে মালেরকোটলা থেকে আরও সহায়তা করা হবে বলে জানা গিয়েছে।

0
করোনা সংকটে ভ্রাতৃত্বের হাত বাড়িয়ে স্বর্ণ মন্দিরে ৩৩ টন গম দান করলো মুসলিমরা. The policy times

ভয়াবহ অতিমারিতেও সমাজে একদিকে যেমন কিছু রাজনৈতিক দল ক্ষমতার অপব্যবহার করছে, অপরদিকে কিছু মানুষের নিঃস্বার্থ মানসিকতায় নতুন করে প্রাণ ফিরে পাচ্ছে, সমাজের দম বন্ধ করা সম্পর্কে ছড়িয়ে পড়ছে পারস্পরিক ভ্রাতৃত্বের সৌজন্যবোধ, প্রেম, ভালবাসা, কৃতজ্ঞতা, সর্বপরি মানুষের পাশে থাকার প্রতিজ্ঞা। এইভাবেই পাঞ্জাবের মালেরকোটলার মুসলিমরা স্বর্ণ মন্দিরের উদ্দেশ্যে ভ্রাতৃত্বের হাত বাড়িয়ে দিয়ে উদার মানসিকতার উদাহরণ স্থাপন করেছেন।

লকডাউন শিথিল হওয়ার সাথে সাথেই দেশের সমস্ত ধর্মীয় স্থানের দ্বার ভক্তদের উপকারের জন্য খোলা হয়েছে। অমৃতসরের বিশ্ববিখ্যাত স্বর্ণ মন্দিরের ক্ষেত্রেও এর অন্যথা হয়নি। স্বর্ণ মন্দিরের লঙ্গরখানার প্রসাদের ওপর নির্ভর করে থাকেন প্রায় কয়েক হাজার মানুষ। স্বর্ণ মন্দির পরিচালকরা নিরলস পরিশ্রমে প্রতিদিন তাঁদের ক্ষুধা নিবৃত্তির মতো মহৎ কাজ করে থাকেন। তবে করোনা  সংকটের কারণে স্বাভাবিকভাবেই স্বর্ণ মন্দির পরিচালকদের নিজেদের রান্নাঘরে জোগান দিতে  বেশ সমস্যা হচ্ছে। এ বিষয়ে মালেরকোটলার মুসলিমরা অবগত হতেই তাঁরা সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। লঙ্গরখানায় মানুষের খাবার জন্য মোট ৩৩ টন গম বোঝাই দুটি ট্রাক স্বর্ণ মন্দিরে তাঁরা পাঠিয়েছেন, পরে এই গম তুলে দেওয়া হয় মন্দির কর্তৃপক্ষের হাতে। আনুষ্ঠানিক ভাবে এই গম তুলে দেন ‘শিখ-মুসলিম সাঁঝা মঞ্জ’-এর সভাপতি নাসির আখতার। আগামী দিনগুলিতে মালেরকোটলা থেকে আরও সহায়তা করা হবে বলে জানা গিয়েছে।


শিখ মুসলিম সঙ্ঘের সভাপতি ড: নাসির আখতার বলেন যে, “স্বর্ণ মন্দিরে লক্ষ লক্ষ মানুষ প্রতিদিন খাবার খান, এক্ষেত্রে আমাদের সহায়তা খুব কম। গুরুদ্বার ম্যানেজমেন্ট কমিটির সমস্যা সম্পর্কে জানতে পেরে আমরা তৎক্ষণাৎ  সাহায্য করার সিদ্ধান্ত নিই। স্বর্ণ মন্দিরের রান্নাঘরে জোগান দিতে আমরা যতটা পারি সহায়তা করব।”

শিখ মুসলিম সঙ্ঘ ফাউন্ডেশনের সদস্যরা ২২ দিনের কঠোর পরিশ্রমের পরে এই গম সংগ্রহ করেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় মেলারকোটলার মুসলমানদের উদ্যোগের বিষয়টি বহু প্রশংসা পাচ্ছে। এ ব্যাপারে অশোক সিংহ গারচা নামে এক ব্যক্তি গত শুক্রবার একটি টুইট করেছেন। ছবিটিতে যে তারিখ দেখা যাচ্ছে সেটিও শুক্রবারের। ছবিতে দেখা যায়, স্বর্ণ মন্দিরে গম দান করতে আসা  মুসলিম প্রতিনিধিরা খাবার খাচ্ছেন আর, তাঁদের খাবার পরিবেশন করছেন শিখ সেবাদাররা। ইতিমধ্যেই এই ছবি ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। ২৪ ঘণ্টারও কম সময়ে পোস্টটি ৪৫ হাজারের বেশি লাইক পেয়েছে। সেই সঙ্গে সমানে চলছে শেয়ার এবং কমেন্ট। জানা যায়, সেখানকার চিফ ম্যানেজার মুখতিয়ার সিংহ গম নিয়ে আসা প্রতিনিধিদের স্বর্ণ মন্দিরে অভ্যর্থনা জানান এবং তাঁদের হাতে সিরোপা, সাম্মানিক পোশাক তুলে দেওয়া হয়।

পাঞ্জাবের সংগ্ররুর জেলার এসপি মনজিৎ সিং বরার বলেন যে, “মালেরকোটলা সর্বদা দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির একটি উদাহরণ স্থাপন করেছে। এখানকার মুসলিম পরিবারগুলি দুর্দান্ত কাজ করেছে”।

Summary
Article Name
করোনা সংকটে ভ্রাতৃত্বের হাত বাড়িয়ে স্বর্ণ মন্দিরে ৩৩ টন গম দান করলো মুসলিমরা
Description
লঙ্গরখানায় মানুষের খাবার জন্য মোট ৩৩ টন গম বোঝাই দুটি ট্রাক স্বর্ণ মন্দিরে তাঁরা পাঠিয়েছেন, পরে এই গম তুলে দেওয়া হয় মন্দির কর্তৃপক্ষের হাতে। আনুষ্ঠানিক ভাবে এই গম তুলে দেন ‘শিখ-মুসলিম সাঁঝা মঞ্জ’-এর সভাপতি নাসির আখতার। আগামী দিনগুলিতে মালেরকোটলা থেকে আরও সহায়তা করা হবে বলে জানা গিয়েছে।
Author
Publisher Name
THE POLICY TIMES
Publisher Logo

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.