বিশ্বে যে ১৩টি দেশে বাঘ আছে, তার মধ্যে ভারতেই রয়েছে ৭০ শতাংশ, প্রকাশিত কেন্দ্রীয় সরকারের রিপোর্ট

নয়াদিল্লিতে মঙ্গলবার একটি অনুষ্ঠানে দেশের ৫০টি ব্যাঘ্র প্রকল্পে বাঘ ও অন্য জন্তু-জানোয়ারের সবিস্তার অবস্থান জানিয়ে রিপোর্ট প্রকাশ করেন কেন্দ্রীয় বনমন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর। কেন্দ্রীয় সরকারের প্রকাশিত রিপোর্ট অনুযায়ী জানা যায়, বিশ্বে যে ১৩টি দেশে বাঘ আছে, তার মধ্যে ভারতেই রয়েছে ৭০ শতাংশ।

0
বিশ্বে যে ১৩টি দেশে বাঘ আছে, তার মধ্যে ভারতেই রয়েছে ৭০ শতাংশ, প্রকাশিত কেন্দ্রীয় সরকারের রিপোর্ট. The policy times

আজ আন্তর্জাতিক ব্যাঘ্র দিবস। সারা বিশ্বে বাঘ সংরক্ষণের জন্য সচেতনতা বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে ২৯ জুলাই ব্যাঘ্র দিবস পালন করা হয়। নয়াদিল্লিতে মঙ্গলবার একটি অনুষ্ঠানে দেশের ৫০টি ব্যাঘ্র প্রকল্পে বাঘ ও অন্য জন্তু-জানোয়ারের সবিস্তার অবস্থান জানিয়ে রিপোর্ট প্রকাশ করেন কেন্দ্রীয় বনমন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর। কেন্দ্রীয় সরকারের প্রকাশিত রিপোর্ট অনুযায়ী জানা যায়, বিশ্বে যে ১৩টি দেশে বাঘ আছে, তার মধ্যে ভারতেই রয়েছে ৭০ শতাংশ।

মঙ্গলবার নয়াদিল্লির একটি অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় বনমন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর বলেন, ‘বিশ্বে যে ১৩টি দেশে বাঘ আছে, তার মধ্যে ভারতে রয়েছে ৭০%। বাঘ সংরক্ষণে ভারত নজির গড়েছে। ১৯৭৩ সালে ৯টি ব্যাঘ্র প্রকল্প নিয়ে প্রজেক্ট টাইগারের যাত্রা শুরু হয়েছিল, তা আজ ৫০টি ব্যাঘ্র প্রকল্পকে নিয়ন্ত্রন করছে। ভবিষ্যতে আমরা এই অভিজ্ঞতা জানিয়ে বাকি দেশে বাঘ সংরক্ষণের কাজে সাহায্য করতে চাই।’

তিনি বলেন, বাঘের সংখ্যা বৃদ্ধিই বুঝিয়ে দেয় যে প্রকৃতির ভারসাম্য ঠিক আছে। এ বিষয়ের উপর তাঁর ব্যাখ্যা অনুযায়ী, ‘পৃথিবীর মোট জমির ২.৫% আমাদের, মোট বৃষ্টিপাতের ৪% আমরা পাই, মোট জনসংখ্যার ১৬% এদেশে রয়েছে, মোট গৃহপালিত পশুর মধ্যে ১৬% আমাদের। জীববৈচিত্র্যের নিরিখে ৮% আমাদের দেশে রয়েছে যার মধ্যে ৭০% বাঘ আছে। এই সংখ্যাই বলে দেয় আমাদের সাফল্য।’


রিপোর্ট অনুযায়ী, দেশে মধ্যপ্রদেশ ও কর্নাটকে এই মুহূর্তে সবথেকে বেশি বাঘ রয়েছে। তবে বক্সা-সহ উত্তর-পূর্বের অন্তত ৩টি ব্যাঘ্র প্রকল্প আপাতত বাঘ-শূন্য। তবে,দেশে ৩০ হাজার হাতি, ৩ হাজার একশৃঙ্গ গন্ডার, ৫০০ সিংহের মতো আরও বহু প্রাণীর তথ্য রয়েছে।

এই অনুষ্ঠানে বন ও পরিবেশ মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় বাঘসুমারির  বনকর্মীদের করোনার মধ্যে বন্যপ্রাণ সংরক্ষণের কাজ করার জন্য প্রশংসার সুরে বলেন, ‘আপনারা কেউ বাঘের থেকে কম নন। আপনাদের অসীম সাহসের জন্যই এই বাঘসুমারির কাজ গিনেস বুকে নাম তুলেছে।’

প্রসঙ্গত, ভারতের জাতীয় পশু বাঘ ভারত, নেপাল, ভুটান, কোরিয়া, আফগানিস্তান এবং ইন্দোনেশিয়ায় বেশি সংখ্যায় দেখা যায়। একটি পূর্ণবয়স্ক সুস্থ বাঘ প্রায় ১৩ ফুট দীর্ঘ এবং ৩০০ কেজি ওজনের হতে পারে। বাঘের বৈজ্ঞানিক নাম পান্থের টাইগ্রিস। জঙ্গলে মানুষের ক্রমবর্ধমান হস্তক্ষেপ এদের জীবনধারায় সমস্যা সৃষ্টি করছে। গোটা বিশ্বে নগরায়নের কারণে বাঘেরা তাদের স্বাভাবিক বাসস্থানের ৯০ শতাংশই হারিয়ে ফেলেছে। বিংশ শতকের গোড়ার দিকে বন্য বাঘের সংখ্যা লক্ষ্যজনক ভাবে কমে যায়। এরপরেই বাঘ দিবস পালনের বিষয়টি নিয়ে চিন্তাভাবনা শুরু হয়। রাশিয়ায় সেন্ট পিটার্সবার্গ টাইগার সামিটে প্রথম বাঘ দিবস পালিত হয়। বাঘেদের স্বাভাবিক বাসস্থান রক্ষা করাই ছিল এই সামিটের মূল উদ্দেশ্য।

সামিটে মোট ১৩টি দেশ অংশগ্রহণ করে, এর মধ্যে ছিলো- ভারত, বাংলাদেশ, নেপাল, ভুটান, মায়ানমার, চিন, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, লাওস, থাইল্যান্ড, ভিয়েতনাম, কম্বোডিয়া এবং রাশিয়া। এই সামিটে ২০২২-এর মধ্যে বন্য বাঘের সংখ্যা ৬০০০-এর বেশি বাড়ানোর লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়। ২০১৯ সালে এই দিনেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ঘোষণা করেন ২০২২ সালের মধ্যে দেশে বাঘের সংখ্যা দ্বিগুণ করার লক্ষ্য নিয়ে এগোবে ভারত।


Summary
Article Name
বিশ্বে যে ১৩টি দেশে বাঘ আছে, তার মধ্যে ভারতেই রয়েছে ৭০ শতাংশ, প্রকাশিত কেন্দ্রীয় সরকারের রিপোর্ট
Description
নয়াদিল্লিতে মঙ্গলবার একটি অনুষ্ঠানে দেশের ৫০টি ব্যাঘ্র প্রকল্পে বাঘ ও অন্য জন্তু-জানোয়ারের সবিস্তার অবস্থান জানিয়ে রিপোর্ট প্রকাশ করেন কেন্দ্রীয় বনমন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর। কেন্দ্রীয় সরকারের প্রকাশিত রিপোর্ট অনুযায়ী জানা যায়, বিশ্বে যে ১৩টি দেশে বাঘ আছে, তার মধ্যে ভারতেই রয়েছে ৭০ শতাংশ।
Author
Publisher Name
THE POLICY TIMES
Publisher Logo