বিশিষ্ট অভিনেতা ও প্রাক্তন সাংসদ তাপস পাল প্রয়াত শ্রদ্ধাজ্ঞাপন মুখ্যমন্ত্রীর

বিশিষ্ট অভিনেতা ও প্রাক্তন সাংসদ তাপস পালের প্রয়াণে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লিখেছেন তিনি গভীরভাবে শোকাহত। তাপস পালের প্রয়াণে ট্যুইটারে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন মুখ্যমন্ত্রীর। বিশিষ্ট অভিনেতা ও প্রাক্তন সাংসদ আজ ভোর ৩.৩৫ টে নাগাদ পরলোকগমন করেন এই খবরে রাজনৈতিক মহল থেকে শুরু করে চলচিত্র জগৎ এবং সাধারণ মানুষ সবাই শোকাহত। তার বয়স হয়েছিলো ৬২ বছর।

0

বিশিষ্ট অভিনেতা ও প্রাক্তন সাংসদ তাপস পালের প্রয়াণে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লিখেছেন তিনি গভীরভাবে শোকাহত। তাপস পালের প্রয়াণে ট্যুইটারে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন মুখ্যমন্ত্রীর। বিশিষ্ট অভিনেতা ও প্রাক্তন সাংসদ আজ ভোর ৩.৩৫ টে নাগাদ পরলোকগমন করেন এই খবরে রাজনৈতিক মহল থেকে শুরু করে চলচিত্র জগৎ এবং সাধারণ মানুষ সবাই শোকাহত। তার বয়স হয়েছিলো ৬২ বছর।

দীর্ঘদিন ধরে স্নায়ু রোগে ভুগছিলেন এই অভিনেতা। এই মাসের ১ম সপ্তাহে বান্দ্রার হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর থেকেই তিনি ভেন্টিলেশনে ছিলেন।৬ ফেব্রুয়ারি ভেন্টিলেশন থেকে বের করা হয়। গতকাল রাতে ফের অসুস্থ হয়ে পড়েন তাপস পাল আজ ভোরে মুম্বইয়ের একটি হাসপাতালে রাত ৩টে ৩৫ শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন।২৯ সেপ্টেম্বর ১৯৫৮ সালে পশ্চিমবঙ্গের কলকাতায় তিনি জন্ম গ্রহণ করেন ।

পালের প্রথম সিনেমা আসে ১৯৮০ সালে, তরুণ মজুমদার পরিচালিত দাদার কীর্তি চলচ্চিত্রে। তিনি ভালোবাসা ভালোবাসা এবং গুরুর দক্ষিণা ইত্যাদি অন্যান্য অনেক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন।টালিগঞ্জে দীর্ঘদিন কাজ করার সুবাদে পরিচালকদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল তাঁর। সকলেই এক বাক্যে জানাচ্ছেন, তাপস পালের মত প্রতিভাধর অভিনেতা টালিগঞ্জে কার্যত ছিল না। তাঁর রাজনৈতিক মতামতের সঙ্গে তাঁদের অমিল থাকতে পারে কিন্তু অভিনেতা তাপসের সকলে গুণমুগ্ধ।স্মৃতিচারণ করে বুদ্ধদেব জানিয়েছেন, তাপস অসম্ভব উঁচুদরের অভিনেতা ছিলেন, তাঁর যথার্থ মূল্যায়ন হয়নি।

উত্তরা ও মন্দ মেয়ের উপাখ্যান ছবিতে তাপস কাজ করেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন পরিচালক বুদ্ধদেব দাশগুপ্তের সঙ্গে।তবে রাজনীতিতে এসে তিনি যে ধরনের বক্তব্য রাখেন তার সঙ্গে বুদ্ধদেব একমত ছিলেন না, তাপসের সঙ্গে দেখা হতে তাঁকে জানিয়েওছিলেন সে কথা।সদ্যপ্রয়াত অভিনেতার স্মৃতিচারণে পরিচালক হরনাথ চক্রবর্তী জানিয়েছেন, তাপস হইহই করে কাজ করতেন, খেতে ভালবাসতেন। তাঁদের সম্পর্ক ছিল ঘনিষ্ঠ বন্ধুর মতো নায়ক-পরিচালকের ছিল না, তাপসের প্রয়াণে তিনি বাকরুদ্ধ, টালিগঞ্জ হারাল এক প্রকৃত ভাল অভিনেতাকে।

তিনি ২০০৯ সালের ভারতীয় সাধারণ নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস থেকে নির্বাচিত হয়ে কৃষ্ণনগর থেকে এমপি হন।যদিও বা এর আগে, তিনি পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার বিধায়কও ছিলেন।২০১৪ সালে, কেন্দ্রীয় সরকারের নির্বাচনের কিছুদিন আগে একটি নির্বাচনী প্রচার সভায় বক্তৃতা দিতে গিয়ে তাপস পাল বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন। তবে পরে এই নিয়ে বিতর্ক তৈরী হলে তিনি প্রকাশ্যে ক্ষমা চান।২০১৬ সালের শেষ ভাগে তাপস পাল আবার সংবাদ শিরোণামে আসেন। রোজ ভ্যালি নামে একটি চিট ফান্ডের সাথে যুক্ত থাকার অভিযোগে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

Summary
Description
বিশিষ্ট অভিনেতা ও প্রাক্তন সাংসদ তাপস পালের প্রয়াণে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লিখেছেন তিনি গভীরভাবে শোকাহত। তাপস পালের প্রয়াণে ট্যুইটারে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন মুখ্যমন্ত্রীর। বিশিষ্ট অভিনেতা ও প্রাক্তন সাংসদ আজ ভোর ৩.৩৫ টে নাগাদ পরলোকগমন করেন এই খবরে রাজনৈতিক মহল থেকে শুরু করে চলচিত্র জগৎ এবং সাধারণ মানুষ সবাই শোকাহত। তার বয়স হয়েছিলো ৬২ বছর।