‘নয়া জাতীয় শিক্ষানীতি’ ঘোষণা করল কেন্দ্রীয় সরকার, ৩৪ বছরের শিক্ষানীতির আমূল পরিবর্তন

বুধবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে ছাড়পত্র পেল নয়া জাতীয় শিক্ষানীতি ৷ এর ফলে আমূল বদলে যেতে চলেছে প্রাক প্রাথমিক থেকে দেশের উচ্চশিক্ষার ধরন ৷

0

বুধবার নয়া জাতীয় শিক্ষানীতি ঘোষণা করল কেন্দ্রীয় সরকার। ৩৪ বছরের শিক্ষানীতির খোলনলচে বদলে ফেলে শিক্ষাক্ষেত্রে বড়সড় পরিবর্তনের পদক্ষেপ। বুধবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে ছাড়পত্র পেল নয়া জাতীয় শিক্ষানীতি ৷ এর ফলে আমূল বদলে যেতে চলেছে প্রাক প্রাথমিক থেকে দেশের উচ্চশিক্ষার ধরন ৷

নয়া নীতিতে স্কুল এবং উচ্চ শিক্ষা ক্ষেত্রে একগুচ্ছ সংস্কারমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। নয়া শিক্ষা নীতি এবং সংস্কারমুখী পদক্ষেপের যুগলবন্দিতে ২০৩৫ সালের মধ্যে স্কুল থেকে উচ্চ শিক্ষায় ভর্তির হার বাড়িয়ে ৫০ শতাংশে তুলে আনার যে লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে। মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের জায়গায় নাম রাখা হল শিক্ষামন্ত্রক। স্কুল শিক্ষা কাঠামো, মাতৃ ভাষার গুরুত্ব, মাধ্যমিক ‘গুরুত্বহীন’, উচ্চ মাধ্যমিকের পদ্ধতিতে বদল, উচ্চ শিক্ষায় মাল্টিপল এন্ট্রি এবং এক্সিটের সুবিধা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে নয়া জাতীয় শিক্ষা নীতিতে।

নয়া জাতীয় শিক্ষা নীতি অনুযায়ী,

১) আগে শিক্ষাব্যবস্থার কাঠামো ছিল ১০+২ বিন্যাসে। নতুন শিক্ষানীতিতে করা হয়েছে ৫ + ৩ + ৩ + ৪ অর্থাৎ, বর্তমান শিক্ষাব্যবস্থার সঙ্গে আরও তিন বছর যোগ করা হয়েছে। যার মধ্যে প্রথম তিন বছর প্রাক প্রাথমিক স্তরের শিক্ষা। এই প্রি-প্রাইমারি স্তরের জন্য সারা দেশে একটি অ্যাকটিভিটি ও লার্নিং বেসড শিক্ষানীতি তৈরি হবে। তার জন্য জাতীয় শিক্ষা মিশন গঠিত হবে। পরিবর্তন হবে পাঠদানের পদ্ধতি। সূত্রের খবর, ক্লাস নাইন থেকে  টুয়েলভ – আটটি সেমেস্টারে পড়াশোনা চলবে। ৪ বছরের মধ্যে ৪০টি বিষয়ে পরীক্ষা দিতে হবে।

২) নয়া নীতিতে বিশেষ ভাবে জোর দেওয়া হয়েছে স্কুলের ভোকেশনাল শিক্ষায়। দেওয়া হবে ভোকেশনাল ট্রেনিংয়ের ইন্টারনশিপ, করা যাবে ১২ ক্লাস পর্যন্ত। ছাত্র-ছাত্রীরা ক্লাস ৬ থেকেই কোডিং শিখবে। ষষ্ঠ শ্রেণি থেকে পাঠ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্ত হতে চলেছে বৃত্তিমূলক শিক্ষা। মার্কশিটে শুধুমাত্র নম্বর এবং পরিসংখ্যানের পরিবর্তে প্রাধান্য পাবে পড়ুয়ার দক্ষতা এবং যোগ্যতা। পড়ুয়াদের জ্ঞানের প্রয়োগিক দিকের উপরে ভিত্তি করে বোর্ডের পরীক্ষা নেওয়া হবে।

৩) আঞ্চলিক মাতৃভাষাকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, কমপক্ষে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা বা শিক্ষাদানের মাধ্যম হিসাবে স্থানীয় মাতৃভাষাকে মাধ্যম করতে হবে। স্কুল চাইলে অষ্টম শ্রেণি বা তার বেশি চালাতে পারে। সমস্ত স্কুল স্তর ও উচ্চশিক্ষায় সংস্কৃত পড়ার সুযোগ পাবে পড়ুয়ারা। এখানে মানা হবে তিনটি ভাষার নীতি।

৪) নয়া ব্যবস্থায় গুরুত্ব কমেছে মাধ্যমিকের। একাদশ দ্বাদশে কোনও স্ট্রিম থাকবে না। উচ্চমাধ্যমিকে আর্টস, সায়েন্স, কমার্স- থাকছে না ৷ বিষয় বাছাইয়ে বাধ্যবাধকতাও থাকছে না ৷

৫) উচ্চশিক্ষাতেও আসছে পরিবর্তন ৷ এবার থেকে স্নাতক অনার্স কোর্স তিন বছরের নয়, চার বছরের। স্নাতকোত্তরে ১ বা ২ বছরের কোর্স পড়ানো হবে। এছাড়া স্নাতক ও স্নাতকোত্তর একসঙ্গে পড়ার জন্য ৫ বছরের একটি ইন্টিগ্রেটেড কোর্সেরও ব্যবস্থা রয়েছে নয়া জাতীয় শিক্ষানীতিতে ৷

 



 

৬) পুরো কোর্স শেষ না হলেও পাওয়া যাবে স্বীকৃতি। প্রথম বছর শেষ করলে সার্টিফিকেট ৷ দ্বিতীয় বছর শেষ করতে পারলে ডিপ্লোমা। পুরো কোর্স শেষ করলে ডিগ্রি। পছন্দমতো বিষয় বেছে নিতে পারবে পড়ুয়ারা। জাতীয় শিক্ষা নীতি ২০২০ অনুসারে, কোনও পড়ুয়া মাঝপথে পড়া বন্ধ করার বা পরীক্ষা না দিয়ে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ফিরে এসে চাইলে কোর্স কমপ্লিট করতে পারে ৷ সেক্ষেত্রে তাঁকে প্রথম থেকে পড়া শুরু করতে হবে না ৷

৭) উচ্চশিক্ষায় উদ্ভাবন ও গবেষণায় জোর দিয়ে একগুচ্ছ নীতি বদলের ঘোষণা।  উচ্চশিক্ষার নীতি নির্ধারণে থাকবে একটিই সংস্থা। প্রত্যেক পড়ুয়ার জন্য অ্যাকাডেমিক ব্যাঙ্ক অফ ক্রেডিট ৷ উচ্চশিক্ষার কোর্সে ভর্তিতে কমন এনট্রান্স টেস্ট ৷ তৈরি হবে ন্যাশনাল টেস্ট এজেন্সি ৷ এমফিল উঠে যাচ্ছে, থাকছে শুধু পিএইচডি ৷

৮) কলেজগুলিকে ফিনান্সিয়ালি আরও কিছু সুবিধা দেওয়া হবে ৷ গোটা দেশে যে ৪৫ হাজার কলেজ রয়েছে তাতে ২০৩৫ সালের মধ্যে ৫০ শতাংশ এনরোলমেন্টের লক্ষ্যমাত্রা রেখেছে কেন্দ্র। কলেজগুলিকে গ্রেডের উপর ভিত্তি করে স্বশাসন দেওয়া হবে ৷ ল’ এবং মেডিক্যাল ছাড়া বাকি সমস্ত উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান একটি নিয়ন্ত্রক সংস্থায় থাকবে।

৯) শিক্ষাক্ষেত্রে দেশের মোট জিডিপি-র ৬ শতাংশ বরাদ্দ করা হয়েছে। এতদিন ছিল ৪.৪৩ শতাংশ।

এদিন এ বিষয়ে দিল্লিতে এক সাংবাদিক বৈঠকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সভাপতিত্বে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠকে নতুন জাতীয় শিক্ষানীতি গৃহীত হয়েছে। একবিংশ শতকের প্রয়োজনের কথা মাথায় রেখে নয়া শিক্ষানীতি প্রস্তুত করা হয়েছে। গত ৩৪ বছরে শিক্ষানীতিতে কোনও বদল আসেনি। ফলে নয়া নীতি খুবই প্রয়োজনীয় হয়ে পড়েছিল। আমার প্রত্যাশা সমগ্র সমাজ, দেশ তথা বিশ্ব নয়া শিক্ষানীতিকে স্বাগত জানাবে।’

 



 

Summary
Article Name
‘নয়া জাতীয় শিক্ষানীতি’ ঘোষণা করল কেন্দ্রীয় সরকার, ৩৪ বছরের শিক্ষানীতির আমূল পরিবর্তন
Description
বুধবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে ছাড়পত্র পেল নয়া জাতীয় শিক্ষানীতি ৷ এর ফলে আমূল বদলে যেতে চলেছে প্রাক প্রাথমিক থেকে দেশের উচ্চশিক্ষার ধরন ৷
Author
Publisher Name
THE POLICY TIMES
Publisher Logo