সংক্রমণ রুখতে এবার বেসরকারি ল্যাবরেটরিগুলিকে র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্টের অনুমতি দিতে চলেছে রাজ্য

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের দাবি, দেশে গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হয়ে গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে সংক্রমণ রুখতে জেলায় করোনা পরীক্ষার হার বাড়াতে রাজ্য সরকারগুলিকে র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট করার পরামর্শ দিল ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চ (আই সি এম আর)। এর জন্য পরীক্ষাকেন্দ্র চিহ্নিত করার কথাও বলেছে আই সি এম আর।

0
সংক্রমণ রুখতে এবার বেসরকারি ল্যাবরেটরিগুলিকে র্যা পিড অ্যান্টিজেন টেস্টের অনুমতি দিতে চলেছে রাজ্য. The policy times

ক্রমাগতই ভয়ানক রূপ ধারণ করছে করোনা। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের দাবি, দেশে গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হয়ে গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে সংক্রমণ রুখতে জেলায় করোনা পরীক্ষার হার বাড়াতে রাজ্য সরকারগুলিকে র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট করার পরামর্শ দিল ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চ (আই সি এম আর)। এর জন্য পরীক্ষাকেন্দ্র চিহ্নিত করার কথাও বলেছে আই সি এম আর। সেই সঙ্গে রাজ্যগুলিতে প্রতিটি অ্যান্টিজেন পরীক্ষাকেন্দ্রকে লিঙ্ক করার এবং কেন্দ্রীয় সংস্থার সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখতে একজন আধিকারিক নিয়োগের নির্দেশও দেওয়া হয়েছে। প্রসঙ্গত, পরীক্ষার হার বাড়াতে সরকারি অধিগৃহীত সংস্থা, সরকারি ও বেসরকারি পরিষেবা কেন্দ্র ও অন্যান্য জায়গা থেকে অনুরোধ পাওয়া গিয়েছে বলে জানিয়েছে আই সি এম আর

টেস্টের সংখ্যা বৃদ্ধির জন্য কয়েক দিন আগেই সরকারি এবং বেসরকারি ল্যাবরেটরিগুলিকে র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্টের অনুমতি দেওয়ার অনুরোধ করা হয়েছিল। স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে খবর, তার পরেই কয়েকটি বেসরকারি ল্যাবের আবেদন খতিয়ে দেখে তাদের অনুমতি দেওয়ার পর্ব শুরু হয়েছে।

এ বিষয়ে স্বাস্থ্যসচিব নারায়ণস্বরূপ নিগম বলেন, “আমাদের তরফ থেকে কখনোই কোনও বাধা ছিল না। আই সি এম আর আগে থেকেই র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্টের অনুমতি দিয়ে রেখেছে। বেসরকারি ল্যাবগুলি যদি বোঝে তারা সব দিক ঠিক রেখে টেস্ট করাতে পারবে, তা হলে তারা করাতে পারে।” কিন্তু, এখনও পর্যন্ত রাজ্যের বেসরকারি ল্যাবগুলিকে অ্যান্টিজেন টেস্টের অনুমতি দেওয়া হয়নি। স্বাস্থ্য দপ্তরের এক কর্তার বক্তব্য, “ আই সি এম আর অনুমতি দিয়েছে। আমাদের দায়িত্ব ল্যাবগুলির আবেদন খতিয়ে দেখে তাদের পরিকাঠামো বিচার করে টেস্ট করার অনুমতি দেওয়া এবং টেস্টের মূল্য ধার্য করে দেওয়া। প্রাথমিক ভাবে আমরা টেস্টের দাম ৭০০ টাকা ধার্য করেছি। তবে এটি এখনো চূড়ান্ত নয়।”


স্বাস্থ্য দপ্তরের এক কর্তার কথায়, “৩০ মিনিটের মধ্যে কোনও ব্যক্তি পজিটিভ কি না তা জানা যাবে। দ্রুত তাঁকে আইসোলেট করা সম্ভব হবে। টেস্টের খরচ আরটি পিসিআরের থেকে অনেকটাই কম।” আই সি এম আর গাইডলাইনে বলা হয়েছে এ পরীক্ষায় পজিটিভ এলে আর পরীক্ষার দরকার নেই। তবে যদি ফল নেগেটিভ আসে তাহলে একবার আরটি পিসিআর পরীক্ষা করানো উচিত।

স্বাস্থ্য ভবনের তরফেও তাই আপাতত যে সব বেসরকারি ল্যাবরেটরির কাছে আরটি পিসিআর টেস্টের পরিকাঠামো রয়েছে, তাদেরই অনুমতি দেওয়ার কথা ভাবা হয়েছে। তবে এখনও কলকাতার বেশ কিছু নামী ল্যাবরেটরি সরকারের হাজারো অনুরোধ সত্ত্বেও করোনা পরীক্ষা শুরু করার ব্যাপারে এখনও সম্মতি দেয়নি। অন্য রোগের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করাতে আসা রোগীদের সুরক্ষার কথা ভেবেই তারা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

Summary
Article Name
সংক্রমণ রুখতে এবার বেসরকারি ল্যাবরেটরিগুলিকে র্যা পিড অ্যান্টিজেন টেস্টের অনুমতি দিতে চলেছে রাজ্য
Description
স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের দাবি, দেশে গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হয়ে গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে সংক্রমণ রুখতে জেলায় করোনা পরীক্ষার হার বাড়াতে রাজ্য সরকারগুলিকে র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট করার পরামর্শ দিল ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চ (আই সি এম আর)। এর জন্য পরীক্ষাকেন্দ্র চিহ্নিত করার কথাও বলেছে আই সি এম আর।
Author
Publisher Name
THE POLICY TIMES
Publisher Logo